দোহাজারী পৌরসভার কাজে ৯৮ লক্ষ টাকার ব্যাপক দুর্নীতি 

প্রকাশিত: 11:26 PM, August 4, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

চট্টগ্রামে চন্দনাইশ উপজেলার দোহাজারী পৌরসভার জামিজুরীর ৫ নং ওয়ার্ডের জামিজুরী সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয় হইতে গুচ্ছ গ্রাম সড়কের কাজে ব্যাপক অনিয়ম বিলে স্বাক্ষর না করায় সহকারী প্রকৌশলী কে বদলির পায়তারা
চালাচ্ছে একটি মহল সরজমিনে
গিয়ে জানাযায় ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরে নগর উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় উক্ত সড়কটির জন্য ৯৮ লাখ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। কার্যাদেশ পায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স এস এম ইউচুপ এন্ড ব্রাদার্স । টিকাদার কাজটি নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে শুরু করলে এলাকা বাসী কাজের মান নিয়ে অভিযোগ তুলে এর ভিত্তিতে
গত (২৫ জুন) দোহাজারী পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী শামীম মৃধা এলাকাবাসী অভিযোগের সত্যতার পাওয়ায় কাজটি বন্ধ করে দেয়। পড়ে তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হলে কাজটির দেখাশোনা করেন উপ-সহকারী প্রকৌশলী এস. এম. জমির উদ্দিন বিষয়টি তদন্ত করে তিনি ও কাজটি বন্ধ করে দেয়। এই ব্যাপরে যোগাযোগ করা হলে দোহাজারী পৌর প্রশাসক ইমতিয়াজ হোসেন কাজ বন্ধ করার কথা শিকার করেন। নিন্মমানের সামগ্রী সরিয়ে পেলার আদেশ দেন। পরবর্তীতে উপ -সহকারী প্রকৌশলী এস এম জমির উদ্দিন ও পৌর প্রশাসক ইমতিয়াজ হোসেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের যোগসাজেসে রহস্য জনক কারণে বাতিল হওয়া নিন্মমানের সামগ্রী দিয়ে কাজটি ঐ সামগ্রী দিয়ে পুনরায় আরম্ভ করে।
উপ -সহকারী প্রকৌশলী এস এম জমির উদ্দিন বিল প্রস্তুত করে সহকারী প্রকৌশলী থেকে বিলের কপিতে সাক্ষর নিতে চাইলে তিনি বিলে সাক্ষর না করায় টিকাদার ও পৌর প্রশাসক মিলে তাকে বদলি করার পায়তারা চালাচ্ছে বলে জানাযায়।
দোহাজারী পৌরসভার উপ-সহকারি প্রকৌশলী এস. এম. জমির উদ্দিন কাছে জানতে চাইলে তিনি এই বিষয়ে কিছু বলতে রাজি হয়নি। এ বিষয়ে দোহাজারী পৌর প্রশাসক ইমতিয়াজ হোসেনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, কাজ আমি দেখি নাই, আমার ইন্জিনিয়ার দেখবার করছিল,রাতে যেই কাজটি হয়েছে বলে আমার কাছে কোন অভিযোগ করেনাই,এলাকার লোকজন কে.কি বলছে তার আমার দেখার বিষয় নয়।