স্বাস্থ্যবিধির কঠিন চ্যালেঞ্জে দুই সিটি কর্পোরেশন

প্রকাশিত: 6:40 AM, July 2, 2020
নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বমুখীর মধ্যে আসন্ন কোরবানির পশুর হাটে ক্রেতা-বিক্রেতাদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন। একদিকে মুসলমানদের বড় ধর্মীয় এই উৎসবে রাজধানীতে পশু কেনাবেচার ব্যবস্থা করা। অন্যদিকে মহামারীর এই সময়ে করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে পশুর হাটে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করা।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, অতীতে পশুর হাটের বিশৃঙ্খলার বিষয়টি বিশ্লেষণ করলে সহজেই বোঝা যাচ্ছে কোরবানির পশুর হাটে সামাজিক দূরত্ব এবং স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করা দুরূহ। এমন বাস্তবতায় কর্মসংস্থান ও অর্থনীতির চাকা সচল রাখার পাশাপাশি ধর্মীয় উৎসব পালনে পশু বেচাকেনার অবাধ সুযোগও করে দিতে হবে।

তবে পশুর হাটে স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে দৃঢ় অবস্থানে দুই মেয়র। এ প্রসঙ্গে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘কোরবানি উপলক্ষে এবার রাজধানীতে অন্যান্য বারের মতো অস্থায়ী কোরবানির পশুর হাট বসবে। প্রস্তুতিমূলক কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

তবে পশুর হাটে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে সবাইকে নানাভাবে সচেতন করা হবে। প্রয়োজনে আমরা মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করব।’ কথা হয় ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, ‘রাজধানীতে অন্যান্য বারের মতো এবারও অস্থায়ী কোরবানি পশুর হাট বসানো হবে। তবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধের জন্য সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে উদ্যোগ নেয়া হবে। একইসঙ্গে আমরা ষাটোর্ধ্ব বয়স্ক ও শিশুদের পশুর হাটে না আসার আহ্বান জানিয়েছি।’

এবার কোরবানি ঈদে ডিএসসিসি এলাকায় ১৮টি এবং ডিএনসিসি এলাকায় ১১টি অস্থায়ী হাট বসানোর লক্ষ্যে দরপত্র আহ্বান, মূল্যায়ন ও যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ডিএনসিসি ৯টি হাটের মধ্যে ৬টি হাটেরই দুই দফা দরপত্রে কাক্সিক্ষত দর পাওয়া যায়নি। এখন তৃতীয় দফা দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে।

অন্যদিকে ডিএসসিসি ২টি হাটের ন্যূনতম দর ওঠেনি এবং ৩টি হাটে কোনো দরপত্রই জমা পড়েনি। এজন্য ওইসব হাটেরও পুনঃদরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। এর বাইরে ডিএনসিসি এলাকায় প্রতিবারের মতো কোরবানি উপলক্ষে বড় আয়োজন থাকবে দেশের সর্ববৃহৎ গাবতলী পশুর হাটেও।

আর অস্থায়ী কোরবানি পশুর হাটের স্বাস্থ্যসম্মত সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করতে ডিএনসিসি ২৩ এবং ডিএসসিসি ২৫টি শর্ত দিচ্ছে ইজারাদারদের। কার্যাদেশ নেয়ার সময় এসব শর্ত মেনে হাট ইজারা নিতে হবে ইজারাদারকে। কোনো কারণে এসব শর্তভঙ্গ করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে দুই সিটি কর্পোরেশন।

ডিএনসিসির হাট : উত্তরা ১৫ নম্বর সেক্টরের ১ নম্বর ব্রিজের পশ্চিমের অংশ এবং ২ নম্বর ব্রিজের পশ্চিম গোলচত্বর পর্যন্ত সড়কের ফাঁকা জায়গা, ভাটারা সাঈদ নগর পশুর হাট, ঢাকা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের খেলার মাঠ, বাড্ডা ইস্টার্ন হাউজিংয়ের খালি জায়গা, মোহাম্মদপুরের বছিলা পুলিশলাইনের খালি জায়গা, মিরপুর সেকশন-৬ এর খালি জায়গা, উত্তরা ১৭ নম্বর সেক্টরের খালি জায়গা থেকে বিজিএমইএ ভবনের খালি জায়গা পর্যন্ত, কাওলার শিয়ালডাঙ্গা পর্যন্ত খালি জায়গা, উত্তরখান মৈনারটেক শহীদনগর হাউজিং আবাসিক প্রকল্পের খালি জায়গা, ভাসানটেক সড়কের পাশের খালি জায়গা এবং ডুমনি এলাকার খালি জায়গা। গাবতলী স্থায়ী পশুর হাটও বিশেষ কলেবরে বসবে।

ডিএসসিসির হাট : উত্তর শাহজাহানপুর খিলগাঁও রেলগেট বাজারের মৈত্রী সংঘের মাঠ সংলগ্ন খালি জায়গা, ইন্সটিটিউট অব লেদার টেকনোলজির মাঠ সংলগ্ন খালি জায়গা, কামরাঙ্গীরচর ইসলাম চেয়ারম্যানের বাড়ি সংলগ্ন খালি জায়গা, পোস্তগোলা শ্মশানঘাট সংলগ্ন খালি জায়গা, শ্যামপুর বালুর মাঠ সংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা, মেরাদিয়া বাজার সংলগ্ন খালি জায়গা, আরমানিটোলা মাঠ সংলগ্ন খালি জায়গা, লিটল ফ্রেন্ডস ক্লাব সংলগ্ন গোপীবাগ বালুর মাঠ ও কমলাপুর স্টেডিয়াম সংলগ্ন বিশ্বরোডের আশপাশের খালি জায়গা, দনিয়া কলেজ মাঠ সংলগ্ন পাশের খালি জায়গা, ধূপখোলা মাঠ সংলগ্ন পাশের খালি জায়গা, সাদেক হোসেন খোকা মাঠের পাশের ধোলাইখাল ট্রাক টার্মিনাল সংলগ্ন উন্মুক্ত জায়গা, ডিএসসিসির আফতানগর ইস্টার্ন হাউজিংয়ের খালি জায়গা, আমুলিয়া মডেল টাউনের খালি জায়গা, রহমতগঞ্জ খেলার মাঠ সংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা, সারুলিয়া পশুর হাট, সারুলিয়া কাঁচাবাজার, ডেমরা বাজার এবং কায়েতপাড়া বাজার।

ন্যূনতম দর ওঠেনি যেসব হাটের : ডিএনসিসির উত্তরা ১৫ নম্বর সেক্টরের ১ নম্বর ব্রিজের পশ্চিমের অংশ এবং ২ নম্বর ব্রিজের পশ্চিম গোলচত্বর পর্যন্ত সড়কের ফাঁকা জায়গা, ভাটারা সাঈদনগর পশুর হাট, ঢাকা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের খেলার মাঠ, মোহাম্মদপুরের বছিলা পুলিশলাইনের খালি জায়গা, মিরপুর সেকশন-৬ এর খালি জায়গা এবং উত্তরখান মৈনারটেক শহীদনগর হাউজিং আবাসিক প্রকল্পের খালি জায়গা, ভাসানটেক সড়কের পাশের খালি জায়গা। আর ডিএসসিসির মেরাদিয়া বাজার সংলগ্ন খালি জায়গা এবং আরমানিটোলা মাঠ সংলগ্ন খালি জায়গা।

দরপত্র পড়েনি ডিএসসিসির ৩ হাটে : শ্যামপুর বালুর মাঠ সংলগ্ন আশপাশের খালি জায়গা, ধূপখোলা মাঠ সংলগ্ন পাশের খালি জায়গা এবং দনিয়া কলেজ মাঠ সংলগ্ন পাশের খালি জায়গা।